এই ২ ধরনের মেয়েদের সাথে রিলেশন করবেন ঠিক আছে কিন্তু ভালোবাসতে যাবেন না


এই ২ ধরনের মেয়েদের সাথে রিলেশন করবেন ঠিক আছে কিন্তু ভালোবাসতে যাবেন না

 

এখন আমি আপনাদের মাঝে টোটাল দুই ধরনের মেয়ে শেয়ার করবো যাদের সাথে আপনি রিলেশন করবেন ঠিক আছে কিন্তু ভালোবাসতে যাবেন না। কারণ এই দুই ধরনের মেয়েগুলো আপনার মনকে ও টাকাকে ফ্রাই করে খেয়ে ফেলবে আপনি বুঝ তে পারবেন না। তাহলে চলুন বেশি কথা না বলেই এই দুই ধরনের মেয়েদেরকে দেখে নেওয়া যাক ও এই মেয়েদের প্রধান কিছু বৈশিষ্ট্য দেখে নেওয়া যাক। আপনি যাতে এই দুই ধরনের মেয়েদেরকে ভাবে চিনতে পারেন এই কারণে আমি কিন্তু আপনার জন্য নিচে একটি ইউটিউব ভিডিও শেয়ার করেছি। নিচে থাকা ইউটিউব ভিডিওটি দেখার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই এই দুই ধরনের মেয়েদের সম্পর্কে ভালো ধারণা পেয়ে যাবেন। কারণ এই দুই ধরনের মেয়েদের সম্পর্কে নিচে থাকা ইউটিউব ভিডিওতে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। তাহলে এখনি দেরি না করে নিচে থাকা ইউটিউব ভিডিওটি মনোযোগ দিয়ে দেখুন অথবা সম্পূর্ণ আর্টিকেল মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

 

 

দেখেন মশাই আপনি যদি মোবাইলের প্যাটার্ন লক ভুলে যান সেটা মেনে নেওয়া মতো। যদি ফেসবুকের পাসওয়ার্ড ভুলে যান সেটা মেনে নেওয়ার মতো। যদি আপনার এক্সামের ডেট ভুলে যান সেটাও মেনে নেওয়ার মতো। কিন্তু প্লিজ জীবনে কখনো এই একটি কথা বলবেন না যেটা হলো: সব মেয়ের রিলেশন করার যোগ্য কিন্তু সব নেই ভালবাসার যোগ্য না। আশেপাশে সিএনজি বাসে রাস্তা ঘাটে, শপিংমলে মার্কেটে। মেলা অনুষ্ঠানের, ফেসবুক ইনস্টাগ্রামে। যেখানে হোক, যে কোন মেয়ে হোক৷ মেয়ে খারাপ হোক ভালো হোক যা মন চায় হোক৷ মেয়ে আপনার সাথে রিলেশন করার আগ্রহ দেখাচ্ছে, ব্যাস| চোখ বন্ধ করে রিলেশন করতে যাবে পড়বেন৷ নো প্রবলেম।

 

কিন্তু প্রসঙ্গ যখন ভালোবাসার৷ তখন মামা আপনাকে অবশ্যই ভেবে চিনতে সেন না নিতে হবে৷ এখানে আপনাকে আপনার কোমড়ের নীচ তলা দিয়ে ভাবতে হবে না। এখানে আপনাকে আপনার গলার উপরে তোলা দিয়ে থাকতে হবে। কারণ – সানিলিওন আরপরিমনির মতাম স্বভাবের মেয়েদের সাথে রিলেশন করে মজা সম্ভব হলেও৷ সংসার করে যেমন সুখী হওয়া সম্ভব নয়া। ঠিক তেমনই এমন কিছু মেয়ে আছে যাদের সাথে কেবলমাত্র রিলেশন করে মজা পাওয়া যায়। এদেরকে ভালোবাসলে জীবনটা তেজপাতা হয়ে যায়। তো সেই মেয়েগুলো কারা তা নিয়ে আজকের আর্টিকেলটি ও ভিডিওটি আপনাদের জন্য তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

 

(১) মেয়েদের অনেক সুন্দর অথবা হুট করেই ইজিতেই পটে যায় এমন মেয়ে

 

যদি দেখেন কোন মেয়ে দেখতে নরম ৮-১০ মেয়ে দেখছে যথেষ্ট সুন্দর। অথচ সে খুব সহজে আপনার কাছে পটে যাচ্ছে। তাহলে নিজেকে ইমরান হাসমির বংশধর মনে না করে। বরং নিজের মনকে বোঝান ডাল মে কুচ কালা হে। কারণ – শুনতে খারাপ লাগলেও আজকাল বাস্তবতা হচ্ছে- একটা সুন্দর মেয়ে ডাইপার ছেড়ে প্যান্ট পরা শুরু করতে না করতেই। রিলেশনে প্রোপজ পাওয়া তাদের শুরু হয়ে যায়৷ টিউশন টিচার থেকে শুরু করে, পাড়াতো, মামাতো, ফুফাতো, চাচাতো, ফালতো গুষ্টির যতন ভাইয়েরা আছে সব একবার হলেও পটানোর চেষ্টা করেই৷

 

আমি মেয়ে আমি খুব ভালো করেই জানি, একটা সুন্দর মেয়ে যে বাহিরে চলাফেরা করে৷ বা ফেসবুকের মত সোশ্যাল সাইটে যুক্ত আছেন৷ তাদেরকে প্রায় কোন না কোন ছেলে প্রপোজ করে৷ তো এমন সুন্দর একটা মেয়ে আপনার কাছে হুট করে পটে গেল তো আপনি কি মনে করতেছেন৷ মেয়েটি আজ পর্যন্ত অন্যা সবার প্রপোজ রিজেক্ট করে এসেছে৷ আপনার জন্য? আপনি কি এমন বালটা ফালাইছেন যেটা এ যাব কেউ বানাতে পারেনি। তাই মেয়েটিকে এ যাবত কেউ পটাতে পারেনি। কিন্তু আপনি পটাতে পারলেন। কী ভাবতেছেন। আপনার মতামত হ্যান্ডসাম ছেলে এর আগে সে কখনও দেখেনি। হাহাহা! মামা! সাবধান। এমন মেয়ে রেলেশন করতে আগ্রহ দেখালে রিলেশন করবেন, রাত জেগে জান জানু বাবু সোনা, যা মন চায় কর৷ কিন্তু ভুলেও এমন মেয়েদেরকে হুট করে , বা অল্প সময়েই মন থেকে ভালোবেসে ফেলবেন না। না তেমন ভাবে মাস্টার খাবেন যে, বিয়ে করতে গেলে কলিজা ছিড়ে ফেল হয়ে আসবে।

(২) অ্যাটিটিউড ওয়ালা মেয়ে এবং রাগি মেয়ে

 

দেখেন মশাই- মেয়ে মানিক আর একটু কম বেশি অ্যাটিটিউড থাকবেই। সে ছেলেদের সাথে একটু রাগি ভাব দেখাবেন। এটাকে খারাপ চোখে দেখার কিছু নাই। বা এতে যে সেই মেয়ে খারাপ সেটা আমি বলিনি। কিন্তু আমার কথা হল- মেয়েরা যখন কাউকে সত্যিকারের ভালোবেসে ফেলে। তখন মেয়েরা সেই ছেলের কাছে দুর্বল হয়ে যায়। মেয়েরা তখন আর সেই ছেলের কাছে অ্যাটিটিউড বা ভাব দেখাতে পারেনা। সেই ছেলের সাথে রাগি অচড়ন করতে চাইলেও পারেনা। তাই যদি দেখেন আপনি যে মেয়েদের সাথে রিলেশন করছেন। মেয়ে আপনাকে অলটাইম সেই অ্যাটিটিউড দেখায়। কথায় কথায় আপনার উপর রাগ করে। কোন কিছুর ব্যাপারে আপনার কাছে নত হয়না। তাহলে মামা- এই পিছনে কাহিনী আনলি ২টা দুইটা হতে পারে।

 

(১) সে আপনার সাথে যতই ভালোবাসার অভিনয় করে নয় কেন? সে বাস্তবে আপনাকে এখন বলডাও ভালবাসেনা। তাই এই মেয়ের সাথে রিলেশন করছেন, ইনজয় ইনজয় করছেন করেন। এই মেয়েকে হুট করেই ভালোবাসতে যাবেন না। গরুর লাথি খেয়ে জীবন যাবে দুর দুহাতে পারবেন না।

 

(২) মেয়েটি বাস্তবে অতিরিক্ত রাগিনী। বা অতিরিক্ত অ্যাটিটিউড ওয়ালী। সে কিছুতেই কারো কাছে নত হয় না। সেটা তার বাবা-মা হোক বা বয়ফ্রেন্ডও হোক বা সেই হোক। তাই সে আপনার সাথে ও এমনটা করে। তাহলে আপনার জন্য আমার ফ্রিতে একটা উপদেশ হল- রাগি মেয়েদের মন অনেক নরম হয়। রাগি মেয়েরা অনেক ভলোবাসতে জানে। এইসব বালের কথা ভুলিয়ে এসব মেয়েদেরকে হুট করে মন থেকে ভলোবাসতে যাবেন না। প্রতিনিয়ত এদের আচরণে, এদের কথায়া, এত কষ্ট আর এতো অপমান বোধ করবেন যে, আপনি বিষ খেলে সেটাও হজম হবে কিন্তু এদের দেওয়া কষ্টটার আপনার হজম হবে না।

 

আগে থেকে একটা কথা বলে রাখি আমি কিন্তু আমার নিজস্ব মতামত গুলো আপনাদের মাঝে শেয়ার করেছি। আমার কথাগুলো যে আপনাকে মানতে হবে বাংলাদেশে এমন কোন আইন কানুন নেই। আমার কথাগুলো আপনার ক্ষেত্রে কাজে লাগতে পারে আবার আপনার ক্ষেত্রে কাজে নাও লাগতে পারে।

 

অবশ্যই আপনি চাইলে আপনার মনের সকল কথা নিচে থাকা ফেসবুক কমেন্ট এর মাধ্যমে আমাদেরকে জানাতে পারেন। আরেকটা কথা আমাদের ইউটিউব চ্যানেলের নাম হচ্ছে মে পটানোর থেরাপি চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব না করলে কিন্তু জরিপানা হবে শুধু সাবস্ক্রাইব করলেই হবেনা পাশাপাশি এখন আপনি যেই ওয়েবসাইটে আছেন ওয়েবসাইটটিকে সাবস্ক্রাইব করতে হবে পাশাপাশি পাশাপাশি নিয়মিত নোটিফিকেশন পাওয়ার জন্য বেল আইকনটি অন করে রাখুন। আপনি যদি কোনো বিশেষ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে চান তাহলে আমাদেরকে জানাবেন আমরা আপনার জন্য কাজ করব ধন্যবাদ।

 

Please Share This Post in Your Social Media

2022 meyepotanortherapy.Com