কিভাবে প্রশংসা করলে মেয়েরা সবচেয়ে বেশি খুশি হয় জেনে নিন


কিভাবে প্রশংসা করলে মেয়েরা সবচেয়ে বেশি খুশি হয় জেনে নিন

 

এখন আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব কি কি প্রশংসা করলে মেয়েরা সবচেয়ে বেশি খুশি হয়। কমবেশি আমরা সবাই জানি মেয়েদেরকে প্রশাসনের করলে মেয়েরা খুব সহজেই খুশি হয়ে যায়। আমি কিন্তু আপনাদের মাঝে কিছু ইউনিক মেয়েদেরকে প্রশংসা করার টিপস শেয়ার করব আশা করি আপনাদের অনেক বেশি কাজে লাগবে। আছে যদি ভালো ইন্টারনেট কানেকশন থাকে তাহলে আপনি চাইলে নিচে থাকা ইউটিউব ভিডিওটি মনোযোগ দিয়ে দেখতে পারেন। ভিডিওটি দেখার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই মেয়েদেরকে প্রশংসা করা ইউনিক টিপস-এন্ড-ট্রিকস জানতে পারবেন। তাহলে আর কি এখনি দেরি না করে নিচে থাকে ইউটিউব ভিডিওটি মনোযোগ দিয়ে দেখুন। তাহলে চলুন বেশি কথা না বলে শুরু করা উচিত।

 

 

আপনি আজ পর্যন্ত সিগারেটে একটা টানও দেননি এটা মেনে নিলাম। আপনি আজো কোনো পর্ন ভিডিও দেখেননি এটাও মেনে নিলাম। আপনি আজো কোনো মেয়ের সাথে রিলেশন করেননি এটাও মেনে নিলাম। কিন্তু আপনি আজো কোনো মেয়েকে কখনোই কোনো ভাবে প্রশংসা করেননি এটা আমি কিছুতেই মেনে নিবোনা। কারন প্রতিটি ছেলেই কোনো না কোনো মেয়েকে কখনো না কখনো প্রশংসা করেই, কারন সব ছেলেই জানে মেয়েরা প্রশংসা পেলে খুব খুশি হয়। বা প্রশংসা করলে মেয়েদেরকে খুব সহজেই পটানো যায়। আর তাই প্রশংসা করার সুযোগ পেলে কোনো ছেলেই সুযোগটা হাত ছাড়া করেনা।

 

কিন্তু আসল সমস্যা হলো-আমি মেয়ে হয়ে বলতেছি, ৯৫% ছেলেই মেয়েদেরকে সঠিক নিয়মে প্রশংসা করতে জানেনা। অর্থাৎ-কোন মেয়েকে কোন প্রশংসা করতে হবে? কোন সময়ে কোন প্রশংসা করতে হবে, কোন প্রশংসা কোন মেয়েকে করা যাবে আর কোন মেয়েকে করা যাবেনা। ইত্যাদি ইত্যাদি। ফলে ঔষধ অনেক পাওয়ারফুল হওয়া সত্বেও খাওয়ানোর সঠিক নিয়ম না জানার কারনে ঔষধ কাজ করেনা। আর তাই আজকের আর্টিকেলে ঔষধ খাওয়ানোর আই মিন, প্রশংসা করার সঠিক কৌশল আমি শেখাতে যাচ্ছি! তো তাহলে আর দেরি কেনো চলুন মূলআর্টিকেলটি শুরু করা যাক।

 

(১) কোন মেয়েকে কোন প্রশংসা করতে হবে? হ্যা, ৯৫% ছেলেদের মূল সমস্যাটা এখানেই, তারা শুধু জানে প্রশংসা করলে মেয়ে পটে, কিন্তু তারা এটা জানেনা যে কোন প্রশংসা কোন মেয়েকে করলে কাজ হবে! দেখেন মশাই একটা জিনিস মাথায় ঢুকিয়ে নেন, যে মেয়ে দেখতে সত্যিই অনেক সুন্দর আপনি তার রুপের হাজার প্রশংসা করলেও কোন লাভ নাই। যে মেয়ের কন্ঠ সত্যিই অনেক সুন্দর আপনি তার কন্ঠের আপনি তার কন্ঠের যতো সুন্দর করেই প্রশংসা করেন কোনো লাভ নাই। যে মেয়ের হাসি সত্যিই অনেক সুন্দর আপনি হাসির যতোই প্রশংসা করেন কোনো লাভ নাই। এর পিছনে দুইটি কারন আছে!

 

(২) মেয়েরা সারাদিন আয়না নিয়েই পড়ে থাকে, কাজেই মেয়েটি যদি সত্যি সত্যিই অনেক সুন্দর হয়ে থাকে তাহলে সে সেটা খুব ভালো করেই জানে! আর হাসি যদি সত্যিই সুন্দর হয়ে থাকে তাহলে সে সেটা খুব ভালো করেই জানে। আপনার থেকে জেনে খুশি হওয়ার কিছুই নেই।

 

(৩) মেয়েটি যদি সত্যি সত্যিই দেখতে সুন্দর হয়য়ে থাকে তাহলে আপনি ১০০% কনফ্রাম থাকেন, আপনার আগে কয়েক শো জন কয়েক শো ভাবে তার রুপের অনেক প্রশংসা করে ফেলেছে। এখন আপনিও সেই প্রশংসা করে কি চুল ছিড়বেন? আর যে কথাটি মেয়েটি এর আগে বহুবার শুনেছে, সেই একই কথা আপনার থেকে শুনে মেয়েটি কেনই বা খুশি হবে বলুন? তার চেয়ে আপনি যদি তার বালের প্রশংসা করে বলতেন, তোমার বাল গুলো অনেক সুন্দর? তাও তো মেয়েটি এটা ভেবে খুশি হয়ে যেতো যে যাক! নতুন একটা প্রশংসা পেলাম।

 

মেয়েটি আপনার প্রশংসা পেয়ে বাসায় গিয়ে সারাক্ষন তার বাল গুলো দেখতো! আর ভাবতো সত্যিই কি আমার বাল গুলো এতো সুন্দর? আর সুন্দর না হলে সে বললো কেন? এতোক্ষন থেকে বাল বলতে যেটা আসতেছেন সেটা মাথা থেকে বাদ দেন। খুব নোংরা লাগতেছে ! আমি মাথার চুলকে হিন্দিতে বাল বলেছি বুঝলেন মশাই? যে মেয়ে যেদিক দিয়ে সত্যি সত্যিই এগিয়ে আছে, সেই মেয়েকে সেই সম্পর্কিত প্রশংসা করে লাভ নাই! বরং তাকে অন্য কোনো প্রশংসা করতে হবে। যেই প্রশংসা গুলো তাকে কেউ আজো করেনি। এখন সেই প্রশংসা গুলো যতো ছোট ছোট ব্যাপারের উপরই হোক না কেনো? সেই প্রশংসা গুলো আপনার থেকে সর্ব প্রথম পাওয়ার কারনে মেয়েটি অটোমেটিক আপনার উপর খুশি হয়ে যাবে।

 

(৩) কোন প্রশংসা কোন সময়ে করতে হবে? দেখেন মশাই! ছোট্ট একটা প্রশংসাও আপনি যদি পারফেক্ট সময়ে করতে পারেন তো সেটাকেও অনেক বড় মনে হয়। সেটাও মেয়েটির মন ছুয়ে যায়। আবার অনেক বড় একটা প্রশংসাও আপনি যদি অযথা একটা সময়ে

 

হুদাই করেন তো সেটাও কোনো কাজেই আসেনা। বরং মেয়েটি আরো বিরক্ত হয়ে যায় ! জানি উদাহরন না দিলে ক্লিয়ার বুঝবেন না। তো চলুন উদাহরন দেই! মনে করুন আপনার বান্ধুবীকে দেখে আপনি যদি এমনি বলেন তোকে সেই সুন্দর লাগছে তাহলে সে ভাববে আজকে আবার আমাকে সুন্দর লাগার মতো কি হলো? তাই সে ব্যাপারটা মোটেও সিরিয়াসলি নিবেনা।

 

কিন্তু যেদিন দেখলেন আপনার বান্ধুবী নতুন কোনো ড্রেস পড়েছে বা নিউ কোনো স্টাইলে সেজে এসেছে, সেদিন যদি তাকে দেখে বলেন তোকে সেই সুন্দর লাগছে! এবার কিন্তু মেয়েটি ঠিকই ব্যাপারটা সিরিয়াসলি নিবে। এবং আপনার প্রশংসা পেয়ে আপনার উপর সেই খুশি হয়য়ে যাবে। আবার মনে করুন-আপনি একটা মেয়েকে হুট করে বলতেছেন! তোমার হাসি অনেক সুন্দর লাগে মেয়েটি ভাববে আমি কবে এর সামনে হাসলাম? তাও আবার এতো সুন্দর করে কবে হাসলাম ? মনে পড়ছে না তো।

 

কিন্তু যদি এমন হয় যে , মেয়েটি আপনার সামনে হাসতেছে, আপনি অবাক হয়য়ে চেয়ে চেয়ে তার হাসি দেখলেন। এবং তার হাসিটা থামার পর আপনি তাকে বললেন! তোমার হাসি কিন্তু অনেক সুন্দর লাগে। এবার কিন্তু এই প্রশংসাটি একদম মেয়েটির মন ছুয়ে যাবে। অর্থাৎ মূল কথা হলো, পরিস্থিতি বুঝে সেই পরিস্থিতির উপর প্রশংসা করতে হবে। তবেই সেটা কাজে আসবে। আর উদাহরন দিবোনা। এতোটুকুতেই বুঝলে বুঝেন না বুঝলে সিঙ্গেল মরেন! আমার কি?

 

(৪) কোন প্রশংসা কোন মেয়েকে করা যাবে আর কোন মেয়েকে করা যাবেনা! ভাই রে ভাই! এই ব্যাপারে কি আর বলবো? এ ব্যাপারে বলতে গেলে বলার আগে ইচ্ছা করে আপনাদেরকে গাছের সাথে বেধে আগে ইচ্ছা মতো পেটাই তারপর বুঝাই! কারন আমি দেখেছি ফেসবুকে আমাকে যখন কোনো অপরিচিত ছেলে নক করে আর আমি তাদের রিপ্লাই দেই তখন তাদের সাথে দু-একটা কথা হতে না হতেই তারা এমন ভাবে প্রশংসা করা শুরু করে, যেভাবে আমার সবচেয়ে কাছের কোনো বন্ধুও প্রশংসা করার কথা না।

 

আর তারা এমন এমন প্রশংসা করে যে আমি কনফিউশনে পড়ে যাই। এরা আমাকে মনে হুয় আগের জন্ম থেকে চেনে! নয়তোবা এরা আমার ন্যাংটা কালের বন্ধু! তখন খুশি হওয়া তো দূরের কথা ইচ্ছা করে মাজাই লাথি দিয়া দূরে সরায়ে দেয়। তো যাই হোক মূল কথা হলো, যে কোনো মেয়েকে প্রশংসা করার আগে আপনাকে বুঝতে হবে আপনি যে মেয়েকে প্রশংসা করতে যাচ্ছেন তার সাথে আপনার কেমন সম্পর্ক? এবং সেই সম্পর্কের উপর ভিত্তি করে আপনাকে সব সময় সিলেক্ট করে নিতে হবে কোন প্রশ্ংসা তাকে করা যাবে , আর কোন প্রশংসা তাকে করা যাবেনা। কারন সম্পর্ক তিন ধরনের হতে পারে!

 

১/ অপরিচিত মেয়ে বা সবে পরিচিত হওয়া মেয়ে।
২/ অনেক দিনের পরিচিত মেয়ে , অথবা ভালো সম্পর্ক গড়ে উঠেছে এমন মেয়ে।
৩/ গার্লফ্রেন্ড বা যে মেয়ের সাথে আপনি একদম ফ্রি এমন মেয়ে।

 

এখন কথা হলো যে প্রশংসা গুলো কেবল মাত্র পরিচিত মেয়ে বা যার সাথে আপনার ভালো সম্পর্ক আছে, এমন মেয়ের ক্ষেত্রেই সাজে এমন প্রশংসা গুলো আপনি যদি কোন অপরিচিত মেয়ে বা যার সাথে সবে পরিচিত হলেন এমন মেয়েকে করেন তাহলে সেই প্রশংসা গুলো তো মেয়েটি সিরিয়াসলি নিবেই না, বরং আপনার উপর বিরক্ত হয়য়ে যাবে, এটাই স্বাভাবিক।

 

আবার মনে করুন আপনি একটা মেয়ের সাথে কিছুদিন হলো পরিচিত হয়েছেন কেবল তার সাথে আপনার সম্পর্ক জমতেছে! এর মাঝেই আপনি যদি তার প্রশংসা করে বলেন-তোমার ঠোট গুলো সেই সুন্দর বা তোমাকে সেই হট লাগে। তাহলে এটাও বিরাট বড় একটা বকচুদি কাজ হবে। যে বুঝার সে এতোটুকুতেই বুঝে গেছে আমি এতোক্ষন কি বোঝানোর চেষ্টা করলাম! আর যারা এক্ষোনো বোঝেননি তারা ভালো দেখে একটা কোল বালিশ বানিয়ে নেন। কারন আপনার কপালে গার্লফ্রেন্ড জোটা মোটেও সম্ভব না।

 

তো আর্টিকেলের শেয়ার বাটনকে কিভাবে প্রশংসা করবেন জানিনা, শেয়ার হওয়া চাই। আর আজকের ক্লাসে যা শেখালাম সেটার উপর আপনাদের হোম ওয়ার্ক হবে-র্টিকেলের কমেন্টে আপনারা এই আর্টিকেলের বা আমার প্রশংসা করবেন। দেখি কে কেম পাড়ে? আর শোনেন দই মিষ্টি ছাড়া আত্বীয়র বাড়িতে যাওয়া আর আমাদের ওয়েবসাইটে সাবস্ক্রাইব না করেই আর্টিকেল পড়ে চলে যাওয়া একই কথা। তাই আমাদের ওয়েবসাইটে সবস্ক্রাইব করেই যান। তো ভালো থাবেন সবাই বাই …………বাই।

 

Please Share This Post in Your Social Media

2022 meyepotanortherapy.Com