1. riyaakhter747@gmail.com : রিয়া আক্তার : রিয়া আক্তার
বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর টিপস ১০০% কাজ করবে
বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর উপায়
বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর টিপস ১০০% কাজ করবে

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সবাই ভাল আছেন। আজ আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব অনুষ্ঠানে ও বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর উপায়। প্রথম দেখাতে প্রেম অথবা প্রথম পরিচয় রিলেশন এমন ঘটনা প্রতিদিন হাজার হাজার ঘটতেছে। এটা এমন কোন নতুন কথা নয় বাট সবচেয়ে মজার ব্যাপার কি জানেন এই প্রথম দেখাতে প্রথম পরিচয় রিলেশন এমন ঘটনা প্রতিদিন যতগুলো ঘটে তার মাঝে ৫০ পার্সেন্ট এর বেশি ঘটনা ঘটে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে।

এর মানে দাঁড়ালো যে আপনি যদি কোন অনুষ্ঠানে যান আর আপনি যদি মেয়ে পটানোর ইচ্ছা থাকে তো আপনি একটা ব্র্যান্ড নিউ গার্লফ্রেন্ড জুটানো সম্ভাবনা বেশি। আপনি আরো জেনে অবাক হবেন যে যে মেয়েগুলো রিলেশন করতে মোটেও আগ্রহী না। যে মেয়েগুলো তাদের আশেপাশে কোন ছেলেদের ঘেস্তে যায় না। এমন ছেলে মেয়েগুলো অনুষ্ঠানের বিয়ে বাড়িতে খুব সহজে পটে যায়। এর পেছনে আসল রহস্য কি এ বিষয়ে আজ আমরা আপনাদের সাথে আলোচনা করব। পাশাপাশি অনুষ্ঠানে মেয়ে পটানোর কিছু মজার তথ্য আজ আমরা আপনাদের মাঝে শেয়ার।

বিয়ে বাড়িতে মেয়ে পটানোর টিপস ১০০% কাজ করবে

সেই সাথে একান্ত গোপন কয়টি তথ্য আমি আজ ফাঁস করে দেব।যেগুলো যেকোন অনুষ্ঠানে মেয়ে পটানোর সময় আপনার কলিকাতা হারবালার মতো কাজ করবে। তার আগে বলে রাখি আপনাদের সুবিধার্থে আমি একটা ভিডিও এড করে দিয়েছি। আপনি যাদের ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন তাহলে আপনার সকল বিষয় বুঝতে সহজ হবে। তাহলে চলুন আর দেরি না করে শুরু করা যাক।

পয়েন্ট নাম্বার ১

মেয়েরা সবচেয়ে বেশি মনোযোগ দিয়ে সাজুগুজু করে কোন অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় কারণ মেয়েরা ভাবে অনুষ্ঠানে অনেক মেয়ে থাকবে। তাই আমি এমন করে সাজবো যাতে করে আমাকে সবচেয়ে বেশি সুন্দর দেখা যায়। আর এই চক্করে মেয়েরা ঘন্টার পর ঘন্টা সাজুগুজু করে আর মেকআপ করতে করতে কাটিয়ে দেয়। তো ভাইয়া একটা মেয়ে এত কষ্ট করে, এত সময় ব্যয় করে, এত এনার্জি নিয়ে এত সুন্দর করে সাজল, মেকআপ করলো। তো সে অনুষ্ঠানে যাওয়ার পর কিভাবে বুঝবে তাকে সবার থেকে বেশি সুন্দর লাগতেছে? কোন মেয়ে বলবে তোমাকে সবার থেকে সুন্দর লাগতেছে এমনটা নয়। কেননা মনে মনে সব মেয়ে তো নিজেকে বিশ্ব সুন্দরী মনে করে।

তাই এখানে অন্য কোন মেয়ের প্রশংসা করার প্রশ্নই আসে না। তাই এখানে একটা টেকনিক ইউজ করে। মেয়েরা লক্ষ্য করে ছেলেরা তার দিকে তাকাচ্ছে কিনা? কোন ছেলে তাদের সাথে লাইন মারার চেষ্টা করছে কিনা? যখন ছেলেরা অন্য মেয়েদের রেখে তার দিকে বেশি তাকাচ্ছে। তার সাথে লাইন মারার চেষ্টা করতেছে, তখন মেয়েরা বিষয়টি বুঝতে পেরে অনেক বেশি খুশি হয়। কারণ এতে করে তারা বুঝতে পারে তাকেই সবার চেয়ে বেশি সুন্দর লাগতেছে। তো বস আপনারা এটা থেকে কি বুঝলেন?

মেয়েরা যখন কোন অনুষ্ঠানে যায় তখন তারা নিজেরাই চায় ছেলেরা তার দিকে দেখুক এবং তাকে লাইন মারুক। ছেলেরা থাকে পটানোর চেষ্টা করুক এবং তার রূপের প্রশংসা করুক। আর যখন কোন ছেলে এগুলো করে তখন মেয়েরা ছেলেটির উপর এত খুশি হয় যে মেয়েটির হৃদয়ে এন্ট্রি নিতে পারে পারে।

পয়েন্ট নাম্বার ২

আপনারা হয়তো জানেন না একটা মেয়ে যত আনরোমান্টিক হোক না কেন? বাট যখন কোন মেয়ে অনেক সুন্দর করে কোথাও সাজুগুজু করে যায়। তখন তার মনে অনেক রোমান্টিক থাকে এবং আমরা সবাই জানি রোমান্টিক মন শয়তানের কারখানা। গোলে যেতে বেশি সময় লাগে না। আমি সত্যি বলছি আপনি রাস্তাঘাটে স্কুলে কলেজে বা যে কোন জায়গায় মেয়ে পটানোর চেষ্টা করে দেখুন। মেয়ের পেছনে ঘুরতে ঘুরতে আপনার জুতা ক্ষয় হয়ে যাবে। মেয়ের মন পাওয়ার জন্য আপনি মেয়ের পেছনে অনেক টাকা খরচ করবেন।

টাকা খরচ করতে করতে আপনার মানিব্যাগ থাকা হয়ে যাবে তবুও আপনি মেয়ের মন গলাতে পারবেন না। অথচ বিয়ে বাড়িতে বা কোন অনুষ্ঠানে মেয়েদের মনে এত রোমান্স করেছে যে কোথা থেকে আসে বুঝিনা আমি। মেয়ের দিকে তাকিয়ে একটু হাসি দিন এবং মেয়ের সাথে একটু যোগাযোগ করুন, একটু লুকোচুরি খেলুন, সিনেমার স্টাইলে কিছু করুন। মেয়েটি কাবু হয়ে যাবে। আপনার হয়তো বিশ্বাস হচ্ছে না কিন্তু আমি সত্যি বলছি এটাই বাস্তবতা। আপনার যদি বিশ্বাস না হয় তবে আপনি কোন অনুষ্ঠানে গিয়ে ট্রাই করে দেখুন কল না পাইলে আমাকে বইলেন। 

পয়েন্ট নাম্বার ৩

কোন মেয়ের বয়ফ্রেন্ড নেই অথবা তার রিলেশন করার ইচ্ছা থাকুক বা না থাকুক এগুলো কোন প্রসঙ্গ নয়। প্রতিটি মেয়েই কোন অনুষ্ঠানে গেলে ইনজয় করার চেষ্টা করে এবং ছেলেদের লাইন মারা, ছেলেদের সাথে দুষ্টামি করা, মজা করা এগুলো খুব জয়। আমি অনেক দেখেছি মেয়ের হয়তো অলরেডি বয় ফ্রেন্ড আছে তবুও কোন অনুষ্ঠানে গেলে ছেলেদের সাথে বিন্দাস মজা করে এবং ইয়ার্কি ফাজলামি করে, কিছু মেয়ে আছে অনুষ্ঠানে গেলে  মেয়ে হয়ে ছেলেদের সাথে লাইন মারে এবং নানা দুষ্টামি করে। যেন তারা ভুলেই যায় যে তাদের বয়-ফ্রেন্ড আছে। মেয়ে দেখে যদি আপনি কোন অনুষ্ঠানে ক্রাশ খান তো মেয়ের বয়ফ্রেন্ড আছে কিনা মেয়ে পটবে কিনা এগুলো ভেবে সময় নষ্ট না করে মেয়েকে রোমান্টিক স্টাইলে মজা দেওয়ার চেষ্টা করুন।

পয়েন্ট নাম্বার ৪

যারা গোপন সমস্যায় ভুগতেছেন তারা কোন অনুষ্ঠানে মেয়ে পটাতে যাবেন না। তো মেয়ে পটাতে যদি চান তাহলে অপমান হয়ে চলে আসবেন। গোপন সমস্যা বলতে আমি বুঝেছি যাদের মেয়েদের সাথে কথা বলতে ভয় লাগে এবং মেয়েদের সামনে করে যাদের হাঁটু কাঁপার ব্যারাম হয়। এমনিতে তো আপনি বাঘের মত গর্জন করেন কিন্তু মেয়েদের সামনে গেলে বিড়াল হয়ে যান তারা কোন অনুষ্ঠানে গিয়ে মেয়ে পটানোর চেষ্টা করবেন না। কারন অনুষ্ঠানে মেয়ে পটাতে গেলে নিজের ভিতর অনেক সাহস থাকতে হয় এবং নিজের ভিতর অনেক কনফিডেন্স আনতে হয়।

আর্টিকেলটি যদি ভালো লেগে থাকে তবে আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না এবং আর্টিকেল নিয়ে যদি আপনার কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তো কমেন্ট এর মাধ্যমে আমাদেরকে জানিয়ে দেবেন। আমরা দ্রুত আপনার সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করব। আর আপনি যদি আমাদের ওয়েবসাইট নতুন হয়ে থাকেন তবে অবশ্যই সাবস্ক্রাইব করে আমাদের সঙ্গে থাকুন এবং আপনি চাইলে আমাকে ফেসবুকে যুক্ত হতে পারেন। ধন্যবাদ।

আমার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করব
About The Author
রিয়া আক্তার
আমি রিয়া আক্তার। মেয়ে পটানোর থেরাপি ওয়েবসাইটের সকল আর্টিকেল আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে লিখেছি। আমি চাই প্রত্যেকটা মানুষ যাতে তার প্রিয়জনের কাছে তার ভালোবাসার কথা বলতে পারে ও প্রিয় জনকে ভালবাসতে পারে।