1. riyaakhter747@gmail.com : Riya Akther : Riya Akther
মেয়েদের এই ৩টি না এর মাঝে হ্যা লুকিয়ে থাকে 
মেয়েদের কে হাসানোর কৌশল
মেয়েদের এই ৩টি না এর মাঝে হ্যা লুকিয়ে থাকে 

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সবাই ভাল আছেন আজ আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব মেয়েদের এই ৩টি না এর মাঝে হ্যা লুকিয়ে থাকে। মনে করেন আপনি কোন মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলেন তোমার কি বয়ফ্রেন্ড আছে? উত্তরের মেয়েটি বলল না। তো এখন আপনি কি ভেবে নেবেন? মেয়ের এই উত্তরটাকে সত্যি ভেবে নিবেন। যদি তাই করেন অর্থাৎ আপনি মেয়ের কথাটাকে অন্ধের মত যদি বিশ্বাস করে নেন এবং নিজের ভালোবাসাকে যদি না করেন তাহলে আমি বলব আপনি দুনিয়ার সবচেয়ে বড় বোকা।

যেটাকে সহজ ভাবে বললে বলা যায় যে মেয়েদের কিছু না এর পিছনে হ্যাঁ লুকিয়ে থাকে। আর আজকের আর্টিকেলে আমি এমন তিনটি ব্যাপারে বলব। যে তিনটি ব্যাপারে মেয়েরা না বললেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এগুলোর পিছনে হ্যাঁ লুকিয়ে থাকে। তার আগে বলে রাখি আপনাদের সুবিধার্থে আমি নিচে একটি ভিডিও দিয়ে দিয়েছি। আপনি যদি পুরো ভিডিওটি দেখতে পারেন। তাহলে পুরো বিষয়টা আপনি খুব সহজে বুঝতে পারবেন। তাহলে চলুন আর দেরি না করে শুরু করা যাক।

মেয়েদের এই ৩টি না এর মাঝে হ্যা লুকিয়ে থাকে

কারণ আপনি যদি ১০০টা মেয়েকে জিজ্ঞাসা করেন,  তোমার কি বয়ফ্রেন্ড আছে? তুমি কি রিলেশন করো? তাহলে আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি 90% মেয়ে বলবে না আমি কোন রিলেশন করি না এবং আমি সিঙ্গেল। তাহলে কি ১০০ টা মেয়ের মধ্যে ৯০ জন নিয়ে সিঙ্গেল অবশ্যই না তার মানে সকল কথা বিশ্বাস করতে নেই। কারণ মেয়েরা কিছু কিছু কথা মুখে বলে একটা বাট ভিতরে বুঝে আরেকটা।

নাম্বার-১ কিস করি?

আপনি যদি আপনার গার্লফ্রেন্ডকে বলেন একটা কিস করি। তো এটা যেন আশা করেন না যে উত্তরে সে হা বলবে জীবনেও এমনটা হবে না। যদিও এমন হয় যে গার্লফ্রেন্ড মনে মনে নিজেই চাচ্ছে যে আপনি তাকে কিস করেন। তারপর কিস করা নিয়ে ৯৯% সম্ভব না সে না বলবে। কারণ একটা কিস করি? এর উত্তর বরাবর মেয়েরা সব সময় না বলে থাকে। কারণ মেয়েরা ভাবে আমি না বললে ছেলেটি বারবার রিকোয়েস্ট করে আমাকে রাজি করাবে। আবার কিছু কিছু মেয়ে মনে মনে ভাবে না বললে কি যায় আসে। আমি নাই বলব বাট সে আমার বলার ভঙ্গিমা এবং আচরণ দেখে ঠিকই বুঝে নেবে আমার এই না এর মাঝে হ্যাঁ লুকিয়ে আছে।

নাম্বার-২ তুমি রাগ করছো?

কোন মেয়ের সাথে কথা বলার সময় মেয়ের কথা বলার ঢং দেখে বা মেয়ের আচরণ দেখে আপনার যদি মনে হয় মেয়েটি আপনার উপর রাগ করেছে। তখন আপনি নিশ্চয়ই ব্যাপারটা কনফার্ম হওয়ার জন্য জিজ্ঞাসা করবেন মেয়েটিকে তুমি কি রাগ করেছো নাকি? তখন মেয়ে যদি বলেন না রাগ করিনি। তখন নিশ্চয়ই আপনি খুশি হয়ে যান এবং টেনশন মুক্ত হয়ে যান। আপনি এটা ভেবে খুশি হয়ে যান যে মেয়ে তো রাগ করেনি। এটা পুরোটা আপনার ভুল। ধারণা কারণ প্রথম কথা মেয়েরা কথায় কথায় রাগ অভিমান করে আর দ্বিতীয়ত তুমি রাগ করেছেন নাকি? এর উত্তরে মেয়েরা জীবনে হ্যাঁ বলে না। তাই কখনো যদি আপনার মেয়ের আচরণ দেখে সন্দেহ হয় যে মেয়েকে রাগ করেছে। তবে ১০০% কনফার্ম থাকলে মেয়েরা করেছেই করেছে।

নাম্বার-৩ প্লিজ মাইন্ড করবে নাতো?

আচ্ছা আপনি আমার একটা প্রশ্নের জবাব দেন তো প্লিজ মাইন্ড করবেন না তো এই কথাটা একজন মানুষকে আপনি কখন বলেন?  কথাটি তখন বলেন যখন আপনি কথাটি বলার প্রয়োজন মনে করেন। ভাই আপনি কবে এ কথাটি তখনই বলেন যখন এই কথাটি বললে সে মাইন্ড করতে পারে। যে কথাটি শুনলে মানুষটি মাইন্ড করতে পারে এমন সম্ভাবনা। কি তাই না? আপনি যদি কোন ছেলেকে বলেন প্লিজ মাইন্ড করবেন না?

তো সে উত্তরের বলবে না করবো না বল। তাহলে আমি বলব আপনি  ৯৫% কনফার্ম হয়ে থাকেন ছেলেটি মাইন্ড করবে না। বাট আপনি যদি কোন মেয়েকে বলেন প্লিজ মাইন্ড করবেন না তো আর উত্তর মেয়েটি যদি বলেন না করবো বলো। তারপর আমি জ্ঞান দিয়ে বলতে পারি মেয়েটি  যতই না বলুক না কেন। কথাটি শুনে মেয়েটি যে মাইন্ড করবে তার সম্ভাবনা 90 থেকে 95%। কারণ যে কথা মেয়ের মাইন্ড করার কথা সে কথা শুনে মেয়েরা মাইন্ড করবে এটা তাদের জন্মগত স্বভাব।

আশা করি আরটিকাটি আপনাদের কাছে ভালো লেগেছে এবং এ ধরনের আরো নতুন নতুন পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন। আর আপনি চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজেও যুক্ত হতে পারেন। আর্টিকেলটি নিয়ে যদি আপনার কোন মতামত থেকে থাকে।  তবে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানিয়ে দিবেন। আমরা দ্রুত আপনার সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ।

আমার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করব
About The Author
Riya Akther
আমার নাম রিয়া আক্তার। আমি একজন স্টুডেন্ট। মেয়ে পটানোর থেরাপি সম্পন্ন ব্যতিক্রমধর্মী একটি ওয়েবসাইট। আমি মূলত মেয়ে পটানোর থেরাপির ওয়েবসাইটের সকল আর্টিকেল লিখেছি। আমি আমার আর্টিকেলে আপনাদের মাঝে যেসব আইডিয়া শেয়ার করেছি এগুলো মূলত আমার বন্ধু বান্ধব ও বান্ধবীদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে নিয়েছি। আমার এই ওয়েবসাইটে কাজ করার উদ্দেশ্য হচ্ছে উদ্দেশ্য হচ্ছে যাতে করে সবাই তার ভালোবাসার মানুষের কাছে তার মনের কথা খুব সহজে জানাতে পারে এবং আমার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমি যাতে আপনাদের ভালোবাসার মানুষটিকে পেতে আপনাদেরকে সকল ধরনের সাহায্য করতে পারি।