1. riyaakhter747@gmail.com : রিয়া আক্তার : রিয়া আক্তার
যে মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায়
মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায়
যে মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায়

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজ আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব যে মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায়। একটা জিনিস আমি কিছুতেই বুঝিনা যার বয়ফ্রেন্ড আছে সে কি জীবনে আর কারো প্রেমে পড়ে না নাকি? অবশ্যই পড়ে। আজকে যে মেয়ে কারো গার্লফ্রেন্ড এর আগে সে নিশ্চয় অন্য কারো গার্লফ্রেন্ড ছিল। সুতরাং কোন মেয়ের গার্লফ্রেন্ড থাকলে ভয় পাবার বা বিরাট ভাবে ঘাবড়ে যাবার কিছু নেই। আজকের পুরো আর্টিকেলটি আপনি ধৈর্য সহকারে পড়ুন আশা করি বয়ফ্রেন্ড থাকা যেকোন মেয়েকে আপনি খুব সহজে পটাতে পারবেন।

আচ্ছা আমাকে একটা কথা বলুন তো গোল কিপার ছাড়া ফুটবল খেলতে কি আপনার ভালো লাগবে? আপনি যখন গোল দিতে যাবেন তখন যদি গোল কিপা না থাকে তাহলে গোল দেওয়ার আসল মজাটাই তো পাওয়া সম্ভব না। তাই আমি বলব আপনার লক্ষ্য যদি অটুট থাকে তাহলে টেনশন না নিয়ে প্রথমে নিজেকে প্রশ্ন করুন তার প্রতি আপনার টানটা আসলে কেমন? তাকে আপনার সত্যি ভালো লাগে নাকি মনের মাঝে তাকে নিয়ে অন্য কোন ধান্দা আপনার লোকিয়ে আছে। যদি তাকে নিয়ে আপনার খারাপ কোন মতলব থেকে থাকে তবে আজকের এই পোস্টটি আপনার জন্য না। আপনি অন্য রাস্তা দেখতে পারেন।

যে মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায় 

আর যদি আপনি মেয়েটিকে সত্যিই অনেক ভালবেসে থাকেন তাহলে চলুন দেরি না করে আজকের বিষয়বস্তু নিয়ে আলোচনা করা যাক। তার আগে বলে রাখি আপনাদের সুবিধার্থে আমি একটি ভিডিও দিয়ে দিয়েছি। সেখানে উপায় যে মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায়  সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করা হয়েছে। এছাড়াও আমরা নিজে প্রতিটি বিষয় ধাপে ধাপে বিস্তারিত ভাবে বর্ণনা করেছে। আপনি চাইলে পুরো আর্টিকেলটি পড়তে পারেন।

যে মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায় 

প্রথমে আপনাকে যে কাজটি করতে হবে সেটি হল ছেলেটির বিষয়ে আপনাকে খোঁজখবর নিতে হবে। আপনি যাকে তার প্রেমিক ভাবছেন সে কি তার সত্যিই প্রেমিক নাকি অন্য কিছু হতে পারে শুধু বন্ধু কিন্তু আপনি প্রেমিক মনে করছেন। হতেই পারে ছেলেটি মেয়েটির ফ্রেন্ড। কিছু ছেলে আছে যারা মেয়েদের পিছনে কামলা ঘাটে। অর্থাৎ এরা মেয়ের ভালোবাসা পাক অথবা না পাক এরা গায়ে পড়ে মেয়েদের সাথে সম্পর্ক তৈরি করে রাখে। আর মেয়েরা নিজের স্বার্থে এসব ছেলেদেরকে বয়ফ্রেন্ডের মতো ব্যবহার করে। কিন্তু বাস্তবে এরা কখনো এসব ছেলেদেরকে বয়ফ্রেন্ড মনে করে না।

সুতরাং আপনার মামলাটা তো এমন কিছু হতে পারে তাই না? আচ্ছা ধরে নিলাম সত্যিকারে বয়ফ্রেন্ড। শুধু এই কারণ টার জন্য আপনি কখনো পিছিয়ে যাবেন না বরং ধৈর্য ধরুন যেহেতু প্রেমিক আছে তাহলে খোঁজ নিন। তার প্রেমিকের সাথে তার সম্পর্কটা কতটা গভীর। হয় না অনেক সময়? যে নামমাত্র প্রেমিক কিন্তু সম্পর্ক ভালো না। তাই সবার আগে মেয়েটির একজন ভালো বন্ধু হবার চেষ্টা করুন এবং এখনই শাকিব খান হওয়ার দরকার নেই। সময় আপনারও আসবে শুধুমাত্র অপেক্ষা করুন।

আর একটা কথা গায়ে পড়ে অকারনে মেয়েটির সাথে কথা বলার চেষ্টা করবেন না। এতে করে মেয়েটি আপনাকে ছেচরা করা ভাবতে পারে। কিছুদিন অন্তর অন্তর মেয়েটির খোঁজখবর নিন এবং মেয়েটির সাথে কথা বলুন। এদিকে আপনিও খোঁজ রাখুন ওই প্রেমিকের সঙ্গে তার সম্পর্ক কোন দিকে মোর নিচ্ছে। আপনি যদি এই যখন ধীরে ধীরে মেয়েটির ভালো বন্ধু হতে পেরেছেন তখন সময় বুঝে তাকে তার প্রেমিক সম্পর্কে জিজ্ঞেস করবেন। সেই সঙ্গে তার প্রেমিকের সঙ্গে কি কি বিষয় নিয়ে তার মনোমালিন্য হয় এবং কতদিন তাদের সম্পর্ক সেসব বিষয় ভালোভাবে জেনে নিন।

যে মেয়ের BF আছে তাকে পটানোর উপায় 

প্রেম থাকলে অবশ্যই সমস্যা ও থাকবে আর আপাতত এই সমস্যাগুলো আপনার হাতিয়ার হবে। আপনি যদি শুরু থেকে ভালোভাবে আপনি লেগে থাকতে পারেন। তাহলে আমি আশা করি এই সময়ের মধ্যে আপনি তার সঙ্গে অনেক ভাল বন্ধুত্ব করতে পারবেন। পাশাপাশি মেয়েকে ধীরে ধীরে আপনাকে বিশ্বাস করতে শুরু করবে। ফলে সে আপনার সাথে অনেক কথা শেয়ার করা শুরু করে দেবে এর মধ্যে তার মানে তিনি আপনাকে তার মূল্যবান সময় দিচ্ছে। যেটার জন্য আপনি এতদিন ওয়েট করছিলেন সেই সময়টি অলরেডি চলে এসেছে। আপনার কথা চালিয়ে যেতে থাকুন এবং এত দিনে আপনি মেয়েটির সম্পর্কে এবং তাদের রিলেশন সম্পর্কে অনেক কিছু জেনে নিয়েছেন। 

মাঝেমধ্যে নিজের হাতিয়ার ব্যবহার করতে শুরু করুন অর্থাৎ কথা ফাঁকে ফাঁকে তার প্রেমিকের দুর্বলতা সম্পর্কে অল্প কিছু কিছু কথা আপনাদের আলোচনার মধ্যে নিয়ে আসুন। বিশেষ করে যেসব বিষয় তাদের মধ্যে মনোমালিন্য হয় সেসব বিষয়ে আপনার বক্তব্য রাখুন এবং বক্তব্যগুলো এমন হতে হবে যেন আপনার কথাগুলো মেয়েটিকে সাপোর্ট করেন। আর আপনি যখন এই কাজটি করতে পারবেন তখন মেয়ে ভাবতে শুরু করবেন আপনি তাকে খুব ভালো বুঝতে পারেন এবং তার চিন্তা-ভাবনা আর আপনার চিন্তাভাবনা একদম এক। আর এতে করে একটা সময় মেয়ে আপনার উপর আস্থা এবং ভরসা রাখতে শুরু করবে।

ধীরে ধীরে মেয়েটির মনে বিশ্ব জন্মাবে আপনি তাকে যখন যা বলবেন, যে  পরামর্শ দিবেন, সেটা নিশ্চয়ই তার ভালোর জন্যই দিবেন। ব্যাস আপনি মেয়েটির ব্রেন ওয়াশ করে দিয়েছেন যা কেউ খাঁটি বাংলায় বলেন মগজ ধোলাই করা। এখন আপনি চাইলে আপনার ইচ্ছা মত মেয়েটির মাইন্ডকে কন্ট্রোল করতে পারবেন। মেয়েটিকে যা ইচ্ছে সেটাই বুঝাতে পারবেন। আর এতদিনের মেয়েটি সকল দুর্গচারগুলো আপনি খুঁজে পেয়েছেন তাহলে আর কি চান। কিন্তু বস আরেকটা কথা আছে এই পুরো প্রক্রিয়া কমপ্লিট করতে করতে আপনাকে অবশ্যই মেয়েটির মনে জায়গা করে নিতে হবে যেন মেয়েটি আপনার সাথে কথা না বলে থাকতে না পারে অর্থাৎ আপনি যদি মেয়েটির সাথে কথা না বলেন তবে মেয়েটি যেন আপনাকে মিস করে।

আপনাকে নিয়ে মিস করার সুযোগ করে দিন। বিভিন্ন কারণে সে তার আগের প্রেমিকের উপর বিরক্ত আর তার সামনে আপাতত আপনি ছাড়া আর কেউ নেই, ব্যাস আপনার কাজ হয়ে গিয়েছে। উপরে আমরা সবগুলো বিষয়গুলো শেয়ার করেছি এবং এগুলো অবশ্যই আপনাকে ধীরে ধীরে সময় নিয়ে করতে হবে তাহলে আপনি ১০০% সাকসেস হতে পারবেন গ্যারান্টি দিলাম।

আর্টিকেলটি যদি ভালো লেগে থাকে তবে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না এবং আপনি যদি আমাদের ওয়েবসাইটের নতুন হয়ে থাকেন তবে এই ধরনের আরো নতুন নতুন তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন। আর আপনি চাইলে আমাদের ফেসবুক পেজেও যুক্ত হতে পারেন। আর্টিকেল নিয়ে যদি আপনার কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তবে অবশ্যই কমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে জানিয়ে দেবেন আমরা দ্রুত আপনার সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ।

আমার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করব
About The Author
রিয়া আক্তার
আমি রিয়া আক্তার। মেয়ে পটানোর থেরাপি ওয়েবসাইটের সকল আর্টিকেল আমার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে লিখেছি। আমি চাই প্রত্যেকটা মানুষ যাতে তার প্রিয়জনের কাছে তার ভালোবাসার কথা বলতে পারে ও প্রিয় জনকে ভালবাসতে পারে।