1. riyaakhter747@gmail.com : Riya Akther : Riya Akther
মেয়ে পটানোর রোমান্টিক মেসেজ ১০০% কাজ করবে
মেয়ে পটানোর মেসেজ
মেয়ে পটানোর রোমান্টিক মেসেজ ১০০% কাজ করবে

হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সবাই ভাল আছেন আজ আমি আপনাদের মাঝে শেয়ার করব মেয়ে পটানোর মেসেজ। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা ফেসবুকে বা মেসেঞ্জারে মেয়েদের সাথে চ্যাটিং করে থাকেন এবং মেসেজের মাধ্যমে তাদেরকে পটানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু কিভাবে মেসেজ করলে খুব সহজে আপনি মেয়েটিকে পটাতে পারবেন তা জানেন না। চিন্তা করবে না। আজ আমরা আপনাদের সেই সমস্যা সমাধান করে দেব।

প্রথমে আমরা আপনাদের মাঝে বর্তমানে সেরা এবং কার্যকর কিছু মেয়ে পটানোর রোমান্টিক মেসেজ শেয়ার করব। এরপর শেয়ার করব কিভাবে মেয়েদের সাথে মেসেজে কথা বলতে হবে এবং কিভাবে আপনি মেয়েদের সাথে মেসেজে কথা বলা শুরু করবেন। যার কারণে আর্টিকেলটি একটু দীর্ঘ হবে তাই কষ্ট করে পুরো আর্টিকেলটি পড়ুন।  

মেয়ে পটানোর রোমান্টিক মেসেজ ১০০% কাজ করবে

আমরা আপনাদের সাথে যে মেসেজগুলো শেয়ার করব এগুলো আপনি হুবহু কপি করে ব্যবহার করতে পারেন অথবা নিজের মনের মত করে এডিট করে ব্যবহার করতে পারেন কোন সমস্যা নেই। আমরা আপনাদের মাঝে যে মেসেজগুলো শেয়ার করেছি এগুলো আমরা বিভিন্ন ওয়েবসাইট এবং বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেল ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সংগ্রহ করেছে এবং এর কার্যকারিতা যাচাই-বাছাই শেষে আপনাদের মাঝে শেয়ার করেছি। তাই আপনি এই মেসেজগুলো নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন।

১.    ভালবাসা মানে বোঝা পড়া, চুক্তি নয়!
এটা মানে ক্ষমা করা, ভুলে যাওয়া নয়!
এটা মানে মনেরাখা, যোগাযোগ না থাকলেও!

২.    মিষ্টি হেসে কথা বলে,,,,,, পাগল করে দিলে।
তোমায় নিয়ে হারিয়ে যাবো ঐ আকাশের নীলে।
তোমার জন্য আমার মনে অফুরন্ত আশা,
সারা জীবন পেতে চাই তোমার ভালোবাসা।

৩.    কিছু কিছু কথা থাকে……,,,,, যা মুখে বলা যায় না
তা চোখে দিয়ে বুঝে নিতে হয়।ৎ
আর,,,, তা যদি হয় 1st প্রেম অার 1st দেখা।

৪.    ভালোবাসা স্বপ্নীল আকাশের মত সত্য।
শিশির ভেজা ফুলের মত পবিত্র।
কিন্তু সময়ের কাছে পরাজিত।
বাস্তবতার কাছে অবহেলিত।

৫.    চোখে আমার ঝর্ণা বহে, মনে দুঃখের গান।
তোরে যদি না পাই আমি, দিব আমার প্রান।
শুনতে চাই তোর কথা, ধরতে চাই হাত।
কেমন করে তোরে ছাড়া, থাকি দিন রাত!

৬.   Jibon কারো জন্যে থেমে থাকে না
কিন্তু মনটা মাঝে মাঝেই থেমে যায়
প্রিয় মানুষটার জন্যে

৭.   ভালবাসা মানে তার কাছ থেকে কিছু
আশাকরা নয়..বরং ভালবাসা মানে
যেকোন মূল্যে তাকেই সবকিছু দেওয়া

৮.   ভালবাসা মানে একজনের প্রতি আকর্ষণ
যাকে সে নিজের সুখে–দুঃখে পাশে রাখতে চায়।

৯.   ভালবাসা মানে একজনের সব দোষগুলো
জেনে যাওয়া এবং সেগুলোর জন্যে
তাকে আরো বেশী করে ভালবাসা।

১০.   আমিতো হাত বাড়িয়ে দাড়িয়ে আছি,,,,,,,
তোমার ভালোবাসা নিব বলে,
দাও তুমি কত ভালোবাসা দিবে আমায় ।
বিনিময়ে একটি হৃদয় তোমাকে দিবো
যা কখনো ফিরিয়ে নেবার নয়।

১১.   কাউকে আবেগের ভালোবাসা দিওনা
মনের ভালোবাসা দিও,,
কারণ আবেগের ভালবাসা….
বিবেকের কাছে হেরে যাবে
আর মনের ভালোবাসা চিরদিন থেকে যাবে

১৩.   হাতে হাত ধরো যদি,
তোমায় নিয়ে পাড়ি দেবো আকাশ নয়তো নদী।

১৪.   যত ঝড় বিচ্ছেদ আসুক তবে,
আমি উত্তাল হয়ে তোমার ঠোঁটে, দেবো চুমু এঁকে।

১৫.   যত প্রণয়ের শত আহ্বান উপেক্ষা করে আমি আসবো,
আর তোমার আঁচলেই আমি ধরা পড়বো।

১৬.   আমার এই ভালোবাসা যেন একটা আয়না,
যেখানে তোমার মুখটি ছাড়া আর কিছুই দেখা যায় না।

১৭.   এই দুনিয়া আমাকে ঠুকরে দিয়েছে,
যেখানে তোমার ভালোবাসা আমাকে আপন করে নিয়েছে।

১৮.   কত শতবার তোমাকে কাছে পেতে চেয়েছি,
যতবার তোমাকে দেখেছি তার চেয়েও বেশি কাছে পেয়েছি।

১৯.   কি ইশারা, কি আকাঙ্ক্ষা তোমাকে নিয়ে,
আমি কাছে এসেছি, তুমি নিও জড়িয়ে।

২০.   আমার জীবনে তোমার আগমনে সব দুঃখ মুছে গেল,
যেমন ঘরে আধার ঘরের প্রদীপ জ্বালে আলো।

২১.   চাঁদ তুমি যেমন রাতকে ভালোবাসো
আমিও ঠিক তেমনিকরে একজনকে ভালোবাসি।

২২.  তোমার ভালোবাসা যেমন
করে কেউ বুঝেনা ঠিক তেমনই করে
সে আমার ভালোবাসা বুঝেনা।

২৩.   আমি তোমার হৃদয় জুড়ে।
Ring Ton হয়ে বাজব আমি মিষ্টি মধুর সুরে।
কখনো ভেবোনা আমি তোমার থেকে দুরে।
বন্ধু হয়ে আছি আমি তোমার নয়ন জুড়ে ।

২৪.   তোমার সৌন্দর্যের প্রশংসা করতে পেরে আমি আনন্দিত,আর তোমাকে দেখে আমার দৃষ্টিশক্তি ধন্য হয়ে গেছে।

২৫. আমি হাত বাড়িয়ে দাঁড়িয়ে আছে তোমার ভালোবাসা নিব বলে। দিও তুমি কত ভালোবাসা দেবে আমাই। বিনিময়ে একটি হৃদয় দেবো তোমাকে যা কখনো ফিরিয়ে নেব না।

২৬.   তোমার সুন্দর চোখ আমাকে একাধিকবার বন্দী করেছে, যখন আমি তোমার প্রেমময় দৃষ্টি কল্পনা করি, আমি তোমার সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে থাকি।

২৭.     তুমি সেই একজন যার সাথে
আমি বৃদ্ধ হতে চাই।

২৮.    সূর্য জ্বলে দিনে ..চাঁদ জ্বলে রাতে..!
কিন্তু তুমি আমার হৃদয়ে প্রতি
দিন রাত জ্বলো..!!

২৯.    আপনি যদি আয়নার সামনে ১১টি
গোলাপ রাখেন, তাহলে আপনি
বিশ্বের সবচেয়ে সুন্দর ১২টি
গোলাপ দেখবেন।

৩০.    তুমি এত সুন্দর যে আমি কি
বলতে যাচ্ছি তা ভুলে গেছি।

৩১.    আমি যতবার তোমার সুন্দর চোখের
দিকে তাকাই ততবারই তোমার
প্রেমে পড়ি।

৩২.    তোমার সাথে দেখা করার আগে,
আমি কখনই জানতাম না যে
অকারণে হাসতে কেমন লাগে।

৩৩.    যদি তোমাকে ভালবাসা ভুল হয়,
তবে আমি সঠিক হতে চাই না।

৩৪.     তোমার হাসিতে আমি তারার
চেয়েও সুন্দর কিছু দেখি।

৩৫. আমি তোমার হাসির পেছনের
কারণ হতে চাই, কারণ তুমি
আমার হাসির পেছনের কারণ।

৩৬.    আষাঢ়ের সন্ধ্যায়, বর্ষার আগমনে,
এক নিরালা ভাঙা কাঠের সেতু,
পারাপারের সময়,
তোমার হাতে হাত রেখে,
তোমার বিস্ময় ভরা আঁখির দিকে চেয়ে আছি।

৩৭.    কালোমেঘে ঘেরা আকাশ হয়তে,
হঠাৎ করে আসা না বলা বৃষ্টি,
হিমেল হাওয়ায়,
ভিজিয়ে দিল দুটি শরীর।

৩৮.    তোমার সেই পুরানো ভাঙা ছাতার নীচে ,
শীতল বাতাসে, বৃষ্টির টাপুর টুপুর শব্দে,
ভূমি থেকে ওঠে আসা মাটির মেটো গন্ধে,
হারিয়ে যায় দুজনে কোন অদূরে।

৩৯.    বিদ্যুৎ চমকায়, বাদল গর্জায়,
দমকা হাওয়া শুরু হয়,
অঝোর ধারায় বৃষ্টি, মেঘাচ্ছন্ন আকাশ,
প্রায় ভিজে যায় দুজনে,
তখনো তোমার সেই পুরানো ভাঙা ছাতার নীচে।

৪০.    বিদ্যুতের ঝলকানিতে, ভয় পেয়ে জড়িয়ে ধরে,
শান্ত বধূর মতো , একদৃষ্টে চেয়ে,
তোমার ভয়মিশ্রিত কন্ঠে, কিছু বলার আগেই
তোমার ঠোঁটের নরম স্পর্শ ছুঁয়ে যায় ,
জীবনের প্রথম চুম্বন।

৪১.    তোমার সেই লজ্জা মিশ্রিত অস্পষ্ট হাসিমাখা মুখখানা,
প্রতিরাতে আমার স্বপ্নে হাতছানি দেয়,
কে তুমি? কেন বার বার স্বপ্নে দেখা দাও?
তোমার জন্যে যেন আমি অপেক্ষায় আছি।

৪২.    তুমি শুধু আমার চাঁদ, তারা
এবং সূর্য নও।
তুমি আমার সমগ্র মহাবিশ্ব।

৪৩    তুমি যদি এত মিষ্টি হতে থাকো
তবে খুব শীঘ্রই আমার
ডায়াবেটিস হবে।

৪৫.   আমি যতই চেষ্টা করি না কেন
তোমাকে আমার মাথা থেকে বের
করে আনতে পারছি না।

৪৬.     সকাল বিকেল বৃষ্টি পড়ে
রাত দুপুরে মন পুকুরে
নুপুর পরে শব্দ করে
অচিন পুরে হৃদয় জুড়ে

৪৭.    ও পাখি তুই বাজিয়ে তোর শিষ
ও’ পাড়ায় গেলে তাহাকে বলে দিস
ব্যালকনিতে যাহার শাড়ি ওড়ে
তাহার জন্য এখনো মন পোড়ে।

৪৮.    তুমি বৃস্টি ভেজা পায়ে সামনে এলে মনে হয়-
আকাশের বুকে যেন জল ছবি এঁকে যায় .
তুমি হাসলে বুঝি মনে হয়,
স্বপ্ন আকাশে পাখি ডানা মেলে দেয় !!!

৪৯.     তোমার জন্য মেঘ গুলো ভেসে যাচ্ছে আকাশে,
তোমার জন্য স্বপ্নঘুড়ি উড়ছে ভেসে বাতাসে,
তোমার জন্য আছে আমার বুক ভরা ভালোবাসা,
এই কথা জানে শুধু আমার বিধাতা !!

৫০.      আমি তোমাকে খুশি দেখতে
ভালোবাসি এবং আমার সবচেয়ে
বড় পুরস্কার হল তোমাকে
হাসতে দেখা।

মেয়ে পটানোর মেসেজ

উপরে আমরা আপনাদের মাঝে বর্তমানে সেরা এবং সব থেকে বেশি জনপ্রিয় মেয়ে পটানোর রোমান্টিক মেসেজ শেয়ার করেছি।উপরে আমরা আপনাদের মাঝে যে মেসেজগুলো শেয়ার করেছি এগুলো কবিতা বা ছন্দ আকারে রোমান্টিক নিয়ে পটানোর মেসেজ ছিল। এবার আমরা আপনাদের মাঝে শেয়ার করব বর্তমানে আরো কিছু সেরা মেয়ে পটানোর মেসেজ। তাহলে চলুন আর দেরি না করে মেসেজগুলো দেখে নেওয়া যাক।

৫১.    তুমি নিজেও জানো না কতটা মায়ায় তোমাকে বেঁধে রেখেছি।‌ কে জানে হয়তো একদিন তুমিও আমার মতো করে জানতে পারবে।‌ সেদিন হয়তো অনেক দেরি হয়ে যাবে। ‌

৫২.   একদিন আমি পুরো এলাকায় প্রাপ্তি স্বীকার পত্র ঘোষণা করব। ‌‌ আমি তোমাকে পেয়েছি, অধিকার করেছি। সবাইকে জানিয়ে দিবো।

৫৩.   মাঝে মাঝে তোমার ভাবনা আমাকে এমনভাবে পেয়ে বসে, আমার কল্পনাতেও আমি তোমাকে দেখতে পাই।

৫৪.  ভাবছি একদিন তোমার মনের ঘরের তালা ভেঙে সবকিছু এলোমেলো করে দিয়ে আসবো। তোমার সমস্ত অস্থিরতার কারণ হব আমি।

৫৫.   আমার কাছে তুমি কেমন? আমার কাছে তুমি আসলে বর্ষায় ধুয়ে যাওয়া স্বচ্ছ চোখের মতই স্নিগ্ধ। ‌ যে চোখে একবার তাকালে আর সহজে ফিরে আসা যায় না।

৫৬.    একবার দেখলে তোমায়, বারবার দেখবার ইচ্ছা জাগে মনে। তোমার কাছে আমি সেভাবে ধেয়ে আসতে চাই, যেভাবে নদী সাগরের কাছে ছুটে যায়।

৫৭.   মাঝে মাঝে তোমার কাছে আত্মসমর্পণ করতে ইচ্ছে করে। বন্দী করে নাও আমায়। আমিও না হয় তোমার মনের কারাগারে যাবত জীবন থাকবো।

৫৮. একটা মেয়ে তো দশ হাত দূরে থেকেই একটা ছেলের চোখ পড়তে পারে। আর তুমি আমার এত কাছে থেকেও আমার হৃদয়ে চোখ রাখতে পারলে না।

৫৯.  আমি তোমার হাসির কারণ হতে চাই, কারণ তুমি আমার হাসির কারণ।

৬০.  আমি যখন তোমার সাথে থাকি, তখন আমার জীবনের সকল কষ্ট দূর হয়ে যায়

৬১. আমি হাজারটা প্রতিশ্রুতি চাই না, আমি শুধু একটাই প্রতিশ্রুতি চাই সেইটা হচ্ছে তুমি যেনো সারাজীবন আমার সাথে থাকো ।

৬২.   আমি তিনটি জিনিস খুব ভালোবাসি, আর সেইটা হলো সূর্য, চন্দ্র এবং তুমি।

৬৩. আমি বিশ্বাস করতে পারি না যে, তোমার মতো সুন্দরী মেয়ে আমার জীবনে আছে এবং তোমাকে পেয়ে আমি নিজেকে অনেক ভাগ্যবান মনে করি।

৬৪.   আকাশের তারার মতো আমার হৃদয় জ্বলে ওঠে, যখন আমি তোমার দিকে তাকাই।

৬৫.   তুমি কি ক্যামেরা? কারণ যতবার তোমার দিকে তাকাই, ঠিক ততবারই আমার হাসি আসে ।

৬৬. তোমার মিষ্টি হাসি বরফকেও গলিয়ে দিতে পারে, যা আমি তোমাকে দেখার পর বুঝতে পেরেছি।

৬৭.   তুমি সেই কবিতা… যা প্রতিদিন ভাবি কিন্তু লিখতে পারিনা। তুমি সেই ছবি…. যা কল্পনা করি কিন্তু আঁকতে পারি না, তুমি সেই ভালবাসা, যা প্রতিদিন চাই কিন্তু বলতে পারিনা।

৬৮.   মনের গভীরে রেখেছি তোরে, বলা হয়নি আজও ভালবাসি তোরে। বলতে গিয়ে আসি ফিরে, কিভাবে বুঝাবো কত ভালোবাসি যে তোরে।

৬৯.   তুমি আমার ভালোবাসা, তুমি আমার প্রাণ, তুমি আমার একলা মনের মিষ্টি অভিমান। তুমি আমার চোখের ভেতর আছো বৃষ্টি হয়ে। ধরার বুকে বৃষ্টি হলে তোমায় মনে পড়ে।

৭০.   আমি যদি তোমার আয়না হতে পারতাম, তাহলে আমি প্রতিদিন সকালে তোমার সুন্দর চেহেরাটা দেখতে পারতাম।

মেয়ে পটানোর রোমান্টিক মেসেজ

উপরে আমরা আপনাদের মাঝে বর্তমানের সবথেকে জনপ্রিয় কিছু মেয়ে পটানোর রোমান্টিক মেসেজ শেয়ার করেছি। এবার আমরা আপনাদের মাঝে শেয়ার করব সব থেকে সেরা মেয়ে পটানো রোমান্টিক মেসেজ। এই মেসেজগুলো মেয়ে পটানোর ক্ষেত্রে পরীক্ষিত এবং ১০০ পার্সেন্ট সাক্সেসফুল রোমান্টিক মেসেজ। আপনি চাইলে মেসেজগুলো কপি করে ব্যবহার করতে পারেন। প্রতিটি মেসেজ এ কি বলা হয়েছে এবং কিভাবে মেসেজগুলো শেয়ার করতে হবে সেই সাথে মেসেজগুলো কখন শেয়ার করতে হবে সে সম্পর্কে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।

বর্তমান যুগে প্রিয় মানুষটির সাথে মেসেজের মাধ্যমে রোমান্টিক কথা বলার একটি ভালোবাসা কার্যকর মাধ্যম যা অনেকের সাকসেস এনে দিয়েছে। তাহলে চলুন আর দেরি না করে শুরু করি।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-১

ভালোবাসা মানে তার কাছ থেকে কিছু আশা করা নয়

বরং ভালবাসা মানে,,,,,,যেকোন মূল্যে তাকেই সবকিছু দেওয়া। 

ভালবাসা মানে একজনে প্রতি অন্যজনের আকর্ষণ

যাকে সে নিজের সুখে-দুঃখে পাশে রাখতে চায়। 

মেসেজের মাধ্যমে আপনি মূলত মেয়েটিকে নিজের থেকে আপনি মেয়েটিকে সবচেয়ে বেশি ভালোবাসেন এটাই বুঝাতে চাচ্ছেন এবং মেয়েটিকে আপনি যখন পাশে পান তখন আপনার কতটা ভালো লাগে সেটিও মেয়েটিকে বুঝিয়ে দিতে পারছেন। আপনি চাইলে এখনি আপনার ভালোবাসা মানুষটিকে রোমান্টিক মেসেজটি পাঠিয়ে দিতে পারেন।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-২

মিষ্টি হেসে কথা বলে,,,,,, পাগল করে দিলে। 

 তোমায় নিয়ে হারিয়ে যাবো ঐ আকাশের নীলে।

 তোমার জন্য আমার মনে অফুরন্ত আশা,

 সারা জীবন পেতে চাই তোমার ভালোবাসা ।

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজে মেয়েটিকে বুঝাতে পারবেন যে আপনি তাকে কতটা ভালোবাসেন এবং আপনি যে সারা জীবন তাকে পাশে চান সেটি মেসেজটির মাধ্যমে খুব সহজে তাকে বুঝিয়ে দিতে পারবেন।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-৩

ভালোবাসা চাদেঁর মতো সত্য

শিশির ভেজা ফুলের মত পবিত্র।

কিন্তু,,সময়ের কাছে পরাজিত

বাস্তবতার কাছে অবহেলিত।

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজে মেয়েটির রূপের প্রশংসার পাশাপাশি আপনাদের ভালোবাসা চাঁদের মতো পবিত্র সেটি খুব সহজে বুঝাতে পারবেন। আর আমরা সবাই জানি মেয়েরা নিজেদের রূপের প্রশংসা এবং নিজেদের ভালবাসা কতটা মজবুত তার জানতে পছন্দ করে। তাই আপনি চাইলে এই মেসেজটির মাধ্যমে খুব সহজে আপনার ভালবাসার মানুষটির মন ঘায়েল করে দিতে পারেন।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-৪

চুপি চুপি বলি তোমায়,…,,,.,,,. আমায় ছেড়ে যেন দুরে যেওনা। 

আছো তুমি আমার হৃদয়ের একদম গহীন বনে,,,,,,,,,,,,,,,,,,

তোমায় ছাড়া আমি বাচতে পারবনা এই ভুবনে।

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি আপনার ভালোবাসা মানুষকে বোঝাতে চাচ্ছেন যে আপনি কখনো তাকে হারিয়ে যেতে দিতে চান না। সব সময় তাকে হারানোর ভয় হয় আপনার। আপনার জীবনে আপনার ভালোবাসা মানুষটি কতটা ইম্পোর্টেন্ট তা আপনি এই মেসেজের মাধ্যমে খুব সহজে তাকে বুঝিয়ে দিতে পারেন। আর আমরা সবাই জানি প্রত্যেকটি মেয়ে চাই তার ভালোবাসার মানুষটির কাছে তার গুরুত্ব কতটা সেটা জানতে।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-৫

সুন্দর সে তো Sopno চাইনা মলিন হবে ।

 জীবন সে তো গল্প লিখিনা নষ্ট হবে ।

 মন সে তো মন্দির ভেঙ্গনা পাপ হবে ।

 Valobasa সে তো সত্য ভুল বুঝোনা হারিয়ে যাবে ।

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি তাকে বোঝাতে চাচ্ছেন যে আপনি তাকে নিজের স্বপ্ন দেখতেছেন এবং ভবিষ্যতে আপনারা যে এক হতে চান সেটি বোঝাতে চাচ্ছেন এবং সেই সাথে তাকে এটিও বলতে চাচ্ছেন আপনি চান না এই স্বপ্ন ভেঙে যাক।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-৬

সত্যিকারের Valobasa জীবনে ১বার হয়।

কোন সময়…,,,, কোন জায়গায়…….,,,কার সাথে

কিভাবে হয় তা কখনও কেউ বলতে পরে না।

হয়তো,,, আমিও তোমাকে ভালোবেসে ফেললাম।

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজে এক ঢিলে দুই পাখি শিকার করতে পারবেন। অর্থাৎ আপনি মেয়েটিকে তার রূপের প্রশংসার পাশাপাশি খুব সহজে নিজের মনের কথা বলে দিতে পারলেন এবং আমি আশা করি ইচ্ছে করে মেয়েটি খুব খুশি হবে এবং আপনার প্রপোজও অ্যাকসেপ্ট করে নিবে।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-৭

কিছু কিছু কথা থাকে……,,,,, যা মুখে বলা যায় না

তা চোখে দিয়ে বুঝে নিতে হয়।ৎ

আর,,,, তা যদি হয় 1st প্রেম অার 1st দেখা।

সে চোখের ভাষা বুজতে হবে।

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি তাকে নিজের মনের কথা ইনডাইরেক্টলি বলে দিচ্ছেন এবং মেয়েটিকে এমনভাবে আপনি তাকে প্রপোজ করছেন। যাতে করে মেয়েটি বিষয়টি বুঝতে পারবে এবং মেয়েটি যদি আপনাকে ভালোবেসে থাকে। তবে আপনার প্রপোজ একসেপ্ট করবে। আর যদি না করে তো আপনারদের মধ্যকার সম্পর্ক নষ্ট হবে না।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-৮

আমিতো হাত বাড়িয়ে দাড়িয়ে আছি,,,,,,,

তোমার ভালোবাসা নিব বলে,

দাও তুমি কত ভালোবাসা দিবে আমায় ।

বিনিময়ে একটি হৃদয় তোমাকে দিবো

যা কখনো ফিরিয়ে নেবার নয়।

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজে মেয়েটিকে নিজের মনের কথা বলে দিয়েছেন এবং সেই সাথে আপনি মেয়েটিকে জানিয়ে দিয়েছেন যে আপনার জীবনে তার গুরুত্ব কতটা। এছাড়াও আপনি এই মেসেজটির মাধ্যমে মেয়েটিকে আরো বলতে পারবেন যে আপনি তাদের সম্পর্কটাকে কতটা মর্যাদা করবেন এবং মেয়েটিকে কতটা ভালো রাখতে পারবেন।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-৯

চেহারা দেখে যদি মানুষ চেনা যেতো,,,,,, তাহলে –

ভুল মানুষের প্রেমে পরে এতো কাঁদতে হতো না

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি আপনার ভালোবাসার মানুষটিকে নিজের মনের কষ্ট খুব সহজে বুঝাতে পারবেন এবং এটা বোঝাতে পারবেন যে আপনি তাকে খুব মিস করছেন।

মেয়ে পটানোর মেসেজ-১০

SMS হয়ে থাকবো…,,,,,,

আমি তোমার হৃদয় জুড়ে…..।

Ring Ton হয়ে বাজব আমি,,, মিষ্টি মধুর সুরে।

কখনো ভেবোনা আমি.,,,,,, তোমার থেকে দুরে।

বন্ধু হয়ে আছি,,,,, আমি তোমার নয়ন জুড়ে 

এই মেসেজটির মাধ্যমে আপনি মেয়েটিকে আপনার জীবনের ভূমিকার পাশাপাশি আপনি মেয়েটির কতটা ভালবাসেন এবং আপনি যে সবসময় মেয়েটিকে মিস করেন সেই সম্পর্কে খুব সহজে বুঝাতে পারবেন।

কিভাবে মেয়েদের সাথে মেসেজে কথা বলা শুরু করবেন

আজ আমি আপনাদের শেয়ার করব যে অনলাইনে প্রথমবার কোন মেয়ের সাথে কথা বলার সময় কিভাবে কথা শুরু করবেন এবং কিভাবে কথা বললে মেয়েটি আপনার সাথে কথা বলার আগ্রহী হবে। সেই সাথে খুব সহজে আপনি মেয়েটিকে পটাতে পারবেন। তাই যারা মেয়ে পটাতে চান তাদের জন্য আজকের এই আর্টিকেলটি অনেক বেশি ইম্পরট্যান্ট। তাই মনোযোগ সহকারে পুরো আর্টিকেলটি পড়বেন। তাহলে চলুন আর দেরি না করে শুরু করা যাক। 

মেয়েদের সাথে কথা বলার আগে বিশেষ করে মেয়েদের সাথে মেসেজ করার আগে অবশ্যই জানতে হবে কিভাবে মেসেজ শুরু করতে হবে। চলুন সে বিষয়ে একটা ধারণা দেওয়া যাক আগে।

পয়েন্ট নাম্বার ১ বাহানা দিয়ে শুরু করা

হ্যাঁ অনলাইনে কোন মেয়ের সাথে মেসেজ করতে চাইলে জাস্ট হাই, হ্যা দিয়ে শুরু না করে অবশ্যই কোনো বাহানা দিয়ে কথা বলা শুরু করবেন। তাছাড়া কখনো আপনার মেসেজগুলো তার কাছে অতটা গুরুত্ব থাকেনা। কিন্তু আপনি যদি কোন বাহানায় তার সাথে কথা বলা শুরু করেন। যেমন মনে করুন সে আপনার কলেজে পড়ে- তো আপনি কলেজ রিলেটেড কোন একটা হেল্প বা কোন একটা তথ্যের বাহানা তার সাথে কথা বলা শুরু করলেন। তখন দেখবেন সে আপনার সাথে খুব আগ্রহ নিয়ে কথা বলছে এবং অনেকক্ষণ সে আপনাকে সময় দিচ্ছে। তখন আপনার সাথে তার এমন আলাপ জমতে থাকবে। আর দেখতে থাকবেন যে কোথাকার জল কোথায় গড়াবে আপনি টেরই পাচ্ছেন না। তাই যে কোন মেয়ের সাথে কথা বলা শুরু করার আগে নিজের মাথাকে একটু খাটাবেন এবং ভালো একটা বাহানা বের করার পরে সে বাহানায় কথা শুরু করবেন।

পয়েন্ট নাম্বার ২ ইনবক্সে মেসেজ করার আগে কি করবেন

যেকোন মেয়েকে ইনবক্সে মেসেজ করার আগে অবশ্যই তার প্রোফাইলে গিয়ে ভালো করে ঘাটাঘাটি করবেন। তাই বলে যে আমি আপনাকে মেয়েটির প্রোফাইল পিক জুম করে ঘাঁটাঘাটি করার কথা বলতেছি এমনটা নয়। আমি আপনাকে বলতেছি প্রোফাইলে গিয়ে তার এবাউট মি অপশনে গিয়ে তার শেয়ার করা প্রত্যেকটি পোস্ট স্ট্যাটাস ইত্যাদি ঘাটাঘাটি করুন। তাহলে মেয়েটি সম্পর্কে আপনার একটি ধারণা এসে যাবে। সবসময় চেষ্টা করুন এমন কোন তথ্য পান পাওয়ার। যেটা দ্বারা আপনি বুঝতে পারেন, মেয়েটি কি কি জিনিস করতে ভালোবাসে বা মেয়েটি কেমন ধরনের? যেমন হতে পারে তার প্রোফাইলে গেটে আপনি বুঝতে পেরেছেন সে মুভি দেখতে ভালোবাসে। অথবা আপনি বুঝলেন ভালোবাসার গল্প ভালবাসে অথবা তার পোস্টগুলো দেখে বুঝলেন সে কবিতা বেশি ভালোবাসে আপনি তখন তার সাথে সে রিলেটেড কোন বিষয় নিয়ে মেসেজ করা শুরু করবেন। তখন দেখবেন মেয়েটি আপনার সাথে আগ্রহ নিয়ে মেসেজের রিপ্লাই দেওয়া শুরু করবে।

পয়েন্ট নাম্বার ৩ ছেলেরা মেসেজ সময় যে ভুলটি করে থাকেন

অধিকাংশ ছেলেরা একটি ভুল সব থেকে বেশি করে থাকে। সেটি হচ্ছে তারা কোন মেয়ের সাথে প্রথমে কথা বলা শুরু করল আর দুই একটা কথা বলার পর যখন কোন কথা খুঁজে পায় না। তখন তারা না ভেবে মেয়েটির সব পার্সোনাল প্রসঙ্গ নিয়ে কথা বলতে থাকে। মেয়েটিকে এমন সব পারসোনাল প্রশ্ন করে যাতে করে মেয়েটি বিরক্ত হয়ে যায়। যেমন তোমার একটা পিক দিবা? তোমার ফোন নাম্বারটা পাওয়া যাবে? আচ্ছা তুমি কোথায় থাকো ইত্যাদি ইত্যাদি।

তো বন্ধুরা একটু সরম করেন। আপনার সাথে তার পরিচয় হওয়া শেষ হয়নি। এর মাঝে আপনি তার পার্সোনাল তথ্য নিতে উঠে পড়ে লেগেছেন। মেয়েটিকে একটু তো সময় দিতে হবে আপনাকে বোঝার জন্য। তাকে একটু সময় দেন আপনার উপর বিশ্বাস এবং আস্থা আনার জন্য। প্রথম দিনে যদি মেয়েটিকে প্রশ্নের উপর প্রশ্ন করে ইন্টারভিউ নেওয়া শুরু করেন। তাহলে মেয়েটি তো আপনার সাথে কথা বলতে একটা সময় বিরক্ত হবে। সাথে নেক্সট টাইম আপনি তাকে মেসেজ দিলে জীবনেও রিপ্লাই দিবে না। তাই ধৈর্য ধরুন এবং মেয়েটির সাথে দুই এক দিন কথা বলুন। মজার মজার কথা বলুন। আস্তে আস্তে ভালো একটা সম্পর্ক গড়ে তুলুন। তখন দেখবেন সময়ের সাথে সাথে আপনি না চাইতেও এমনিতে সবকিছু পেয়ে যাবেন।

পয়েন্ট নাম্বার ৪ বেশি বেশি প্রশংসা করুন

মেয়েদের প্রশংসা করতে হবে এবং মেয়েরা নিজেদের প্রশংসা শুনে সবচেয়ে বেশি খুশি হয়। আপনি যখন মেয়েটির সাথে মেসেজে কথা বলেন তখন মেয়েটির সাথে মেসেজে বেশি বেশি তার প্রশংসা করুন। এতে করে মেয়েটি অনেক খুশি হবে। তবে তাই বলে তাই বলে আপনি জায়গা এবং সময় না বুঝে প্রশংসা করেন তবে কোন কাজ হবে না। আপনাকে অবশ্যই সময় বুঝে এবং পরিস্থিতি বুঝে মেয়েটির প্রশংসা করতে হবে। তাই চেষ্টা করুন মেয়েটির সাথে দুই তিন দিন কথা বলে তার সাথে ফ্রি হন এবং সে যখন আপনার সাথে কথা বলে ইন্টারেস্ট পাবে। ঠিক তখনই তার প্রশংসা করা শুরু করুন।

পয়েন্ট নাম্বার ৫ বয়ফ্রেন্ডের কথা আগে জিজ্ঞেস করবেন না

আপনি যদি মেয়েটিকে পটাতে চান, তাহলে মেসেজের মাধ্যমে প্রথমে মেয়েটির বয়ফ্রেন্ডের কথা আগে জিজ্ঞেস করবেন না। প্রথম কথা হলো মেয়েরা তো তাদের বয়ফ্রেন্ডের ব্যাপারে কখনো সত্য কথা বলে না। আর যদি কোন কারণে বলে ফেলে যে তার বয়ফ্রেন্ড আছে। তাহলে পরের বার যখন আপনি তার সাথে কথা বলবেন তখন সে অনেক ভাব দেখাবে। কারণ সত্যি হোক আর মিথ্যুক। সে আপনাকে বলে ফেলেছে যে তার বয়ফ্রেন্ড আছে। তো তার বয়ফ্রেন্ড থাকা সত্ত্বেও সে যদি আপনাকে সময় দেয়। তো এটা খারাপ হয় না? তাই সে আপনাকে পাত্তা দিতে চাইবে না। তাই কোন মেয়ের সাথে যখন আপনি শুরুতে পরিচিত হবেন অথবা ম্যাসেজে কথা বলা শুরু করবেন। তখন কখনোই আগে জিজ্ঞেস করবেন না যে তার বয়ফ্রেন্ড আছে কিনা?

এ ধরনের নতুন নতুন পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন এবং আমাদের আর্টিকেলটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তবে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ।

আমার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করব
About The Author
Riya Akther
আমার নাম রিয়া আক্তার। আমি একজন স্টুডেন্ট। মেয়ে পটানোর থেরাপি সম্পন্ন ব্যতিক্রমধর্মী একটি ওয়েবসাইট। আমি মূলত মেয়ে পটানোর থেরাপির ওয়েবসাইটের সকল আর্টিকেল লিখেছি। আমি আমার আর্টিকেলে আপনাদের মাঝে যেসব আইডিয়া শেয়ার করেছি এগুলো মূলত আমার বন্ধু বান্ধব ও বান্ধবীদের ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে নিয়েছি। আমার এই ওয়েবসাইটে কাজ করার উদ্দেশ্য হচ্ছে উদ্দেশ্য হচ্ছে যাতে করে সবাই তার ভালোবাসার মানুষের কাছে তার মনের কথা খুব সহজে জানাতে পারে এবং আমার ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমি যাতে আপনাদের ভালোবাসার মানুষটিকে পেতে আপনাদেরকে সকল ধরনের সাহায্য করতে পারি।